22 C
Dhaka
Thursday, December 9, 2021
Home Campus News Bangladesh বুটেক্স বিজনেস ক্লাব | BUTEX Business Club

বুটেক্স বিজনেস ক্লাব | BUTEX Business Club

বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম সক্রিয় এবং প্রানবন্ত ক্লাব হচ্ছে “বুটেক্স বিজনেস ক্লাব “, যা প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই শিক্ষার্থীদের নেতৃত্বের গুনাবলি, উপস্থাপনা-দক্ষতা বৃদ্ধি এবং সার্বিক ব্যক্তিত্বের বিকাশের জন্য একটি প্ল্যাটফর্ম হিসেবে কাজ করে আসছে। ক্লাবটি বুটেক্সের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ব্যবসায়িক ধারণা গড়ে তুলতেও কাজ করে যাচ্ছে এবং এই লক্ষ্য মাথায় রেখে বুটেক্স বিজনেস ক্লাব টেক্সটাইল ভিত্তিক ” বিজনেস কেইস কম্পিটেশন “এর আয়োজন করে থাকে। কর্পোরেট জগতের সাথে যোগসূত্র স্থাপন এবং সদা পরিবর্তনশীল এবং প্রতিযোগিতামূলক টেক্সটাইল সেক্টরের জন্য শিক্ষার্থীদের প্রস্তুুত করতে “বুটেক্স বিজনেস ক্লাব ” ইন্ডাস্ট্রিগুলোতে উদ্ভূত ব্যবসায়িক সমস্যার সমাধানে শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধ করে আসছে।

টেক্সটাইল সেক্টর বাংলাদেশের অর্থনীতির মেরুদণ্ডস্বরূপ। তাই, বস্ত্র খাতের প্রকৌশলীদেরও সেইভাবে নিজেকে প্রস্তুুত করতে হবে,প্রযুক্তিগত শিক্ষার পাশাপাশি কর্পোরেট জীবনে অভ্যস্ত হতে হবে। সেজন্য, বুটেক্সের শিক্ষার্থীদের সাথে কর্পোরেট জগতের সেতুবন্ধন স্থাপন করাটা অত্যন্ত জরুরী। এই লক্ষ্যটিকে সামনে রেখে, বুটেক্সের ৩৯ তম ব্যাচের পাঁচ জন স্বপ্নবিলাসী শিক্ষার্থী একটি ক্লাব গঠনের স্বপ্ন দেখেছিলেন, যা এই সেতুটি তৈরি করবে,এমন একটি সেতু যা শিক্ষার্থীদের টেক্সটাইল বিশ্বের সফল কর্পোরেট মাস্টারমাইন্ডগুলির সাথে সেতুবন্ধন তৈরিতে ভূমিকা পালন করবে এবং এরই ধারাবাহিকতায় বুটেক্স বিজনেস ক্লাব (বুটেক্সবিসি) গঠিত হয়েছিল,২৮ শে আগস্ট, ২০১৬ সালে। প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকেই বুটেক্স বিজনেস ক্লাব অএ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বিকাশের লক্ষ্যে এবং তাদের মধ্যে নেতৃত্বের গুনাবলি বিকাশ, পেশাদারিত্ব জাগ্রত করা, পাশাপাশি পেশাদারিত্বের বিকাশের সুযোগ তৈরি করার জন্য নেতৃস্থানীয় টেক্সটাইলের পেশাদারদের সাথে শিক্ষার্থীদের সেতুবন্ধন তৈরি করতে এবং শিক্ষার্থীদের উদ্যোক্তার গুনাবলি অর্জন করতে কাজ করে আসছে।

প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই বুটেক্স বিজনেস ক্লাব অএ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সাথে বহুমাত্রিক কর্মশালার যোগসূত্র সৃষ্টি করার মাধ্যম হিসেবে কাজ করে আসছে। ক্লাবটি কতিপয় নিবেদিতপ্রাণ ও পরিশ্রমী শিক্ষার্থীদের দ্বারা পরিচালিত হয় এবং ক্লাবটি সর্বক্ষেএে স্বচ্ছতা বজায় রাখে। ক্লাবটি মূলত টেক্সটাইল বিজনেস সম্পৃক্ত আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় “বিজনেস কেস কম্পিটিশন”এর উপর জোর দেয় যা ‘টেক্সবিজ’ নামে পরিচিত।এছাড়াও,বুটেক্স বিজনেস ক্লাবের সার্বিক সহযোগিতায় টেক্সপ্রেস,প্রফেশোনাল -টক,ইন্টারপ্রেনোরিয়াল টক সহ নানাবিধ সেমিনার ও কর্মশালা আয়োজিত হয়ে আসছে।

বুটেক্স বিজনেস ক্লাব সম্পর্কে অএ বিশ্ববিদ্যালয়ের টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ারিং ম্যানেজমেন্ট ডিপার্ট্মেন্টের শিক্ষক এবং প্রতিষ্ঠাকালীন মডারেটর আরিফ ইকবাল বলেন,”বুটেক্স বিজনেস ক্লাব আমরা যখন শুরু করি,আমাদের একটা উদ্দেশ্য ছিল যে, টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ারিং পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ্যবইয়ের বাইরে বিভিন্ন সহ – পাঠক্রম সংক্রান্ত কার্যক্রমের সাথে সেতুবন্ধন তৈরি করা, ব্যবসায়িক কার্যক্রম সংক্রান্ত জ্ঞানের বিকাশ ও বৃদ্ধি করা, সাপ্লাই চেইনের কেইস-সল্ভিং ও নতুন নতুন সাপ্লাই চেইন নিয়ে গবেষণা এবং এই কাজে অএ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সম্পৃক্ততা সৃষ্টি করা। বুটেক্স বিজনেস ক্লাবের মাধ্যমে বিভিন্ন টেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রির সাথে সংযুক্ত হয়ে বিজনেস-সম্পৃক্ত জটিল সমস্যা সমাধান এবং কেইস-সল্ভিংয়ে ছাএ-শিক্ষক এক হয়ে কাজ করা। বুটেক্স বিজনেস ক্লাব শুধু বিজনেস সম্পৃক্ত কেইস-সল্ভিং নয়,বরং শিক্ষার্থীদের বাস্তব জীবনের সাথে জড়িত বহুবিধ প্রতিকূল পরিস্থিতি মোকাবিলা করে সমস্যার সমাধান এবং সমস্যা কেন এবং কিভাবে সমাধান করতে হবে সেই মানসিকতা সৃষ্টি করতে উদ্বুদ্ধ করে থাকে। বুটেক্স বিজনেস ক্লাব বরাবরই আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় কেইস কম্পিটেশনগুলোতে নিজেদের সক্ষমতার পরিচয় দিয়ে এসেছে এবং বহুবিধ সাফল্য বয়ে নিয়ে এসেছে।আমাদের শিক্ষার্থীরা টেক্সটাইল এবং এ্যাপারেল ইন্ডাস্ট্রি সম্পৃক্ত উচ্চ স্তরের কেইস-সল্ভিং এর ক্ষেএে বরাবরই দক্ষ ও পরিপক্ব মানসিকতার পরিচয় দিয়ে আসছে। এটা আমাদের অন্যতম একটি বড় অর্জন। আমি চাই বুটেক্স বিজনেস ক্লাব নিজস্ব মহিমায় এগিয়ে যাক তোমাদের হাত ধরেই, সবার জন্য রইলো আমার শুভকামনা। “

বুটেক্স বিজনেস ক্লাব সম্পর্কে অএ বিশ্ববিদ্যালয়ের ডাইস এন্ড ক্যামিকাল ডিপার্ট্মেন্টের শিক্ষক এবং ক্লাবটির বর্তমান মডারেটর ড. আব্বাস উদ্দীন শায়ক বলেন,”বুটেক্স বিজনেস ক্লাব প্রতিষ্ঠার পর থেকে সাফল্যের চারটি বছর কেটে গেছে। এটি বুটেক্সের অন্যতম একটি সক্রিয় ক্লাব হিসেবে কাজ করে আসছে সৃষ্টি লগ্ন থেকেই এবং বুটেক্স বিজনেস ক্লাব বুটেক্সের টেক্সটাইল গ্র্যাজুয়েটদের পরিচালনামূলক এবং উদ্যোক্তা বিষয়ক মানসিকতা বিকাশের জন্য অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে । ইঞ্জিনিয়ারিং পাঠ্যক্রমের শিক্ষা ছাড়াও টেক্সটাইল শিল্পের ব্যবসায়িক দৃষ্টিভঙ্গি ও অভিজ্ঞতার সাথে ক্লাবটি শিক্ষার্থীদের পরিচয় করিয়ে দিচ্ছে । বুটেক্সে প্রথম আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় কেইস-কম্পিটিশন থেকে শুরু করে হার্ভার্ড বিজনেস কেইস স্টাডি নিয়মিত পড়া;শিক্ষার্থীদের মধ্যে আন্তরিকতা ও নেতৃত্বের মতো দক্ষতার বিকাশ করা ; পারস্পরিক যোগাযোগ রক্ষা এবং টিম ওয়ার্কের মতো মানবিক গুণাবলী সহ সর্বাত্মক গ্র্যাজুয়েটদের বিকাশের লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে আসছে ক্লাবটি। এটি এমন একটি ক্লাব যেখানে সমস্ত সদস্যেরা একটি পরিবারের মতো থাকে,পরিবারের জন্য সবাই সম্পূর্ণরূপে নিযুক্ত এবং বুঝতে পারে যে কিভাবে সবাই মিলে কোনও ক্লাব পরিচালনা করতে হয়, সম্পর্কগুলি গড়ে তুলতে হয়, নেটওয়ার্কগুলি প্রতিষ্ঠিত করতে হয়, অবদানের প্রশংসা করতে হয়; কিভাবে সংঘবদ্ধ হয়ে কোনো সমস্যার সমাধান করতে হয় ; নতুনত্ব এবং সৃজনশীলতার মূল্যবান করতে হয় এবং পারস্পরিক আকাঙ্ক্ষাগুলিকে উত্সাহিত করতে হয়। ক্লাবটির বর্তমান মডারেটর হিসেবে আমি ক্লাবটির সাফল্য কামনা করছি এবং ক্লাবটি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে আরও উন্নতি করতে চাই।”

বুটেক্স বিজনেস ক্লাব সম্পর্কে ক্লাবটির বর্তমান প্রেসিডেন্ট মো.নূর হোসেন বলেন,”বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৯ তম ব্যাচের পাঁচজন স্বপ্নবিলাসী মানুষের হাত ধরে আমাদের ক্লাবের যাত্রা শুরু। প্রতিষ্ঠার পর থেকে আমাদের ক্লাবের অনেক গুলো উদ্দেশ্যের মধ্যে, একটি উদ্দেশ্য ছিল বুটেক্স এর শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রোফেশনালিজম ‌তৈরি করা এবং তাদেরকে আগামী দিনের যোগ্য লিডার হিসেবে গড়ে তোলা। এই উদ্দেশ্যে আমরা আমাদের নিয়মিত প্রোগ্রামের পাশাপাশি কিছু ওয়ার্কশপ, প্রেজেন্টেশন সেশনের আয়োজন করি যাতে করে ক্লাবের মেম্বারের পাশাপাশি সাধারণ ছাত্ররা নিজের মধ্যে এই গুন গুলো তৈরি করতে পারে। এ ছাড়াও আমাদের ক্লাবের মধ্যে একটা প্রোফেশনাল স্ট্রাকচার রয়েছে, যেখানে আটটি ডিপার্টমেন্টের মাধ্যমে আমাদের ক্লাবের নিয়মিত কাজ গুলো পরিচালনা করা হয়। এতে করে আমাদের ক্লাবের মেম্বাররা শিক্ষাগত জীবনেই প্রোফেশনাল লাইফের সম্পর্কে ধারণা পায়। আমি আশা রাখি সামনের দিন গুলোতে আমাদের ক্লাবের পথ চলা আরো বেগবান হবে। আমাদের ক্লাবের হাত ধরে টেক্সটাইল এবং বিজনেস সেক্টরে অনেক বড় বড় লিডার তৈরি হবে।”

বুটেক্স বিজনেস ক্লাব নিয়ে ক্লাবটির সাধারণ সম্পাদক রিয়াসাত জামান বলেন,”বুটেক্স বিজনেস ক্লাব আগস্ট ২০১৬ সালে যাত্রা শুরু করেছিল। তখন থেকে এই ক্লাবটির প্রতিষ্ঠাতা এবং সদস্যরা এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিজনেস সম্পৃক্ত জ্ঞান এবং অন্তর্দৃষ্টি ছড়িয়ে দেওয়ার একটি সাধারণ লক্ষ্য নিয়ে নিরলসভাবে কাজ করেছেন। টেক্সটাইল এবং পোশাকের এই বহু মিলিয়ন ডলারের শিল্পকে চালনার বিশাল দায়িত্ব নিয়ে দাঁড়িয়ে বুটেক্সের শিক্ষার্থীদের সঠিক ক্যারিয়ারে সঠিক মানসিকতা এবং সংস্থান নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। বুটেক্স বিজনেস ক্লাব সেই মিশনে কাজ করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এখন অবধি আমরা টেক্সবিজ, প্রোফেশনাল-টক , ইন্টারপ্রেনার-টক এবং টেক্সপ্রেসের মতো অনেক ইভেন্টের ব্যবস্থা করেছি। টেক্সবিজ আমাদের ক্লাবের ফ্লাগশিপ ইভেন্ট যা দেশের একমাত্র টেক্সটাইল ভিত্তিক বিজনেস -কম্পিটিশন । আমি সেই দিনগুলির প্রত্যাশায় রয়েছি যেখানে ভবিষ্যতে তাদের মূল দক্ষতা অনুসারে বিজনেস ক্লাব শিক্ষার্থীদের সঠিক চাকরিতে রাখার ক্ষেত্রে মুখ্য ভূমিকা পালন করবে।”

বুটেক্সের শিক্ষার্থীদের মধ্যে পেশাদারিত্ব তৈরির লক্ষ্যে বুটেক্স বিজনেস ক্লাব মূলত এর যাত্রা শুরু করেছিল ২০১৬ সালে অএ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৯ ব্যাচের ৫ জন শিক্ষার্থীর হাত ধরে এবং তারপর থেকে প্রানবন্ত এবং নিবেদিত প্রানদের হাত ধরে এগিয়ে গেছে বুটেক্স বিজনেস ক্লাব। বুটেক্স বিজনেস ক্লাব এপযন্ত ৩ বার “টেক্সবিজ” নামে পরিচিত আন্তঃ বিশ্ববিদ্যালয় কেস-কম্পিটেশন প্রতিযোগিতা , ২ বার “টেক্সপ্রেস”,৩ বার “প্রফেশোনাল-টক’ এবং ২ বার ” ইন্টারপ্রেনার টক আয়োজিত করেছে।এছাড়া,প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই বুটেক্স বিজনেস ক্লাব বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে যোগসূত্র স্থাপন করতে সমর্থ হয়েছে এবং পারস্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে বিভিন্ন শিক্ষামূলক কর্মশালা ও সেমিনার আয়োজন করে আসছে।বুটেক্স বিজনেস ক্লাব এর সার্বিক সহযোগিতায় আন্ত- বিশ্ববিদ্যালয় কেস কম্পিটেশন প্রতিযোগিতার ওয়ার্কশপ অধিবেশন (ইন্টার-ফেইস্)-২০১৭ সালের ১৬ ই মার্চ অনুষ্ঠিত হয় এবং এতে বক্তা হিসেবে ছিলেন অএ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ডাঃ আব্বাস উদ্দিন শায়েখ ও টেন মিনিট স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা আয়মান সাদিক। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী দলগুলোর মধ্যে ১ম ধাপ থেকে ২য় ধাপে ১৪ টি টিম পৌছাতে পারে। ২ এপ্রিল,২০১৭ দ্বিতীয় ধাপ অনুষ্ঠিত হয় এবং তন্মধ্যে ৭ টি দল, ৪ এপ্রিল,২০১৭ সালে ফাইনালে লড়াই করে এবং বিজয়ী হয় “দা-এ্যারবিট্রাটরস” এবং রানার্সআপ হয় “পায়োনিয়ার্স”।এরপর, বুটেক্স বিজনেস ক্লাব এবং “টেন মিনিট স্কুল” এর মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হওয়ার অনুষ্ঠানটি ৭ এপ্রিল,২০১৭ অনুষ্ঠিত হয় এবং উভয় পক্ষই ডিজিটাল শিক্ষার বিষয়বস্তুগত সুবিধাকে উন্নতকরন ও বর্ধনের মাধ্যমে মানসম্পন্ন সংস্থান, প্রশিক্ষণ এবং পরামর্শদাতাদের অ্যাক্সেসের সমস্যা সমাধানের জন্য এবং পারস্পরিক সহযোগিতা করার জন্য এই সমঝোতা চুক্তিতে সম্মত হয়।

বুটেক্স বিজনেস ক্লাব প্রধানত আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিতে ‘বিজনেস কেস-কম্পিটেশন ‘এর উপর জোর দেয় যা ‘টেক্সবিজ’ নামে পরিচিত এবং এটি ক্লাবটির “ফ্লাগশিপ ইভেন্ট “, যা প্রতিবছরই অনুষ্ঠিত হয়। বুটেক্স বিজনেস ক্লাবের সার্বিক সহযোগিতায় টেক্সটাইল শিল্প এবং ইন্ডাস্ট্রিগুলোতে উদ্ভূত বহুমাত্রিক ব্যবসায়িক সমস্যাগুলোকে কেন্দ্র করে প্রথমবারের মতো ২০১৭ সালের ১৬ ই মার্চ” আর্ক্রোমা টেক্সবিজ ২০১৭ “এর মাধ্যমে টেক্সবিজের যাএা শুরু হয় এবং ১৬ ই এপ্রিল,২০১৭ এর ফাইনাল অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতায় দুইটি ধাপ ছিলো : অন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় এবং আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়। প্রায় ১২৮ টি গ্রুপ অন্তঃ বিশ্ববিদ্যালয় কেস-কম্পিটেশন প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিল এবং প্রতিযোগিতার পরে ফাইনালিস্ট হিসাবে কেবলমাত্র ৩ টি গ্রুপ নির্বাচিত হয়েছিল যারা বুটেক্স থেকে আন্তঃ বিশ্ববিদ্যালয় বিজনেস কেস কম্পিটেশনে অংশ নিয়েছিল।এই আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় “বিজনেস কেস কম্পিটেশন ” এ ২০ টি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২৬ টি দল অংশ নেয় এবং তন্মধ্যে চূড়ান্ত রাউন্ডের জন্য নির্বাচিত হয়েছিল মাত্র ৮ টি দল। এই ৮ টি দলের মধ্যে বুটেক্সের একটি দলও নির্বাচিত হয়েছিল এবং ১৬ ই এপ্রিল ফাইনালে অবশেষে ইসলামী প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বা “আই.ইউ.টি এর একটি দল ‘সোয়াট কেটস’ বিজয়ী হওয়ার গৌরব অর্জন করে এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আই.বি.এ এর‘এক্সকালিবুর’ এবং বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অফ প্রফেসনালস এর ‘ইলিভেনথ আওয়ার’ যথাক্রমে ১ ম রানার আপ এবং ২ য় রানার আপ হয়।

প্রোফেশনাল টক, টেক্সটাইল সেক্টরের সফল পেশাদার ব্যক্তিবর্গ এবং বুটেক্সের শিক্ষার্থীদের মধ্যে সেতুবন্ধন স্থাপনকারী একটি প্রোগ্রাম এবং বুটেক্স বিজনেস ক্লাবের সার্বিক সহযোগিতায় অএ বিশ্ববিদ্যালয়ে সর্বপ্রথম, ১৪ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৭ এ ” প্রফেশোনাল টক” অনুষ্ঠিত হয়েছিল।বুটেক্স বিজনেস ক্লাব আয়োজিত এবং ডাইস্টারের উপস্থাপিত পেশাদারদের এই আলাপে ইউরোপীয় ইউনিয়নে ডেনিম রফতানি করার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সম্প্রতি চীনকে পরাজিত করে যে নতুন সম্ভাবনার দুঁয়ার উন্মোচন করেছে, সেই কথা উঠে আসে।পাশাপাশি, দেশের জন্য ডেনিম রফতানির সফলতা এবং সম্ভাবনা, ডেনিম খাতের প্রবণতা সম্পর্কেও আলোচনা হয় যা ভবিষ্যতের বুটেক্সিয়ানদের আরও অনুপ্রাণিত করবে। এরই ধারাবাহিকতায় বুটেক্স বিজনেস ক্লাবের সার্বিক সহযোগিতায় ২০১৭ সালের ১৭ অক্টোবর “হান্টসম্যান প্রেজেন্টস এন্টারপ্রেনিয়োরিয়াল টক ২০১৭” আয়োজন করা হয়েছিল, যা শিক্ষার্থীদের উদ্দোক্তা হতে অনুপ্রেরণা যোগাবে এবং সঠিক সময়ে একজন পেশাদারের মতো সিদ্ধান্ত নিতে উদ্বুদ্ধ করবে।

বুটেক্স বিজনেস ক্লাব ‘আর্ক্রোমা টেক্সবিজেড ২০১৭’অনুষ্ঠিত করার ফলস্বরূপ অপরিসীম প্রশংসা ও সাফল্য অর্জন করে যার ধারাবাহিকতায় টেক্সবিজের দ্বিতীয় আসর “ডাইসিন টেক্সবিজ -২০১৮ ″ অনুষ্ঠিত হয় এবং এতে ২৩ টি বিশ্ববিদ্যালয় এবং টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট থেকে প্রায় ১০৬ টি দল প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। এই প্রতিযোগিতা তিনটি ধাপ বা রাউন্ডে অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম রাউন্ডটি ছিল অনলাইন রাউন্ড, দ্বিতীয় রাউন্ডটি উপস্থাপনা বা “প্রেজেন্টেশন”রাউন্ড এবং তৃতীয় রাউন্ডটি ছিল ” ফাইনাল”বা চূড়ান্ত পর্ব। অনলাইন কেস সলিউশন রাউন্ডের পরে, ডাইসিন টেক্সবিজেড ২০১৮ এর অন্তঃ পর্বের সময় নির্বাচিত হওয়া বুটেক্স থেকে ৫ টি দল : টিম পাইওনিয়ার্স, ভ্যালিরিয়ান স্টিলার্স, ডি জোকারস, বিজটেক্স এবং গেম চেঞ্জার্স সহ সর্বমোট ২৩ টি দল “উপস্থাপনা” রাউন্ডের জন্য নির্বাচিত হয়েছিল। এগুলোর মধ্যে চূড়ান্ত পর্বে উঠে সাত দল এবং পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে এসব দলের প্রতিযোগীরা তাদের বিজনেস কেস ও সেগুলোর সমাধান উপস্থাপন করে। নতুনত্ব ও উদ্ভাবনের বিবেচনায় এগুলোর মধ্যে সেরা হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইবিএর দল “টিম লাজুক”,প্রথম রানার্স আপ হয় বুয়েটের ” টাইকুনস” এবং দ্বিতীয় রানার্স আপ হয় বুটেক্সের “টিম ভ্যালিরিয়ান স্টিলারস”। চূড়ান্ত পর্বের অন্য দলগুলো হলো দ্য ব্রিজ, টিম ডায়নামো, টিম নেভার স্যাটেল ও নো ব্রেইনার।

এরপর,২০১৮ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর, বুটেক্স বিজনেস ক্লাব এর সার্বিক সহযোগিতায় “এসিআই কেমিক্যালস লিমিটেড প্রেজেন্টস প্রফেশনাল টক ২০১৮” অনুষ্ঠিত হয় ।এরপর,
বুটেক্স বিজনেস ক্লাব এর সার্বিক সহযোগিতায় ৩১ অক্টোবর, ২০১৮ এ ‘আরক্রোমা এন্ট্রাপ্রিনিউরিয়াল টক ২০১৮’ শীর্ষক সেমিনারের আয়োজিত হয়।

“টেক্সপ্রেস “বুটেক্স বিজনেস ক্লাবের অন্যতম একটি নবউদ্যোগ, যা বুটেক্সের শিক্ষার্থীদের ব্যবসায়িক কৌশল ও উপস্থাপনা শৈলীর ইতিবাচক চর্চায় বিশেষ ভূমিকা পালন করে আসছে । ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত হওয়া এই টেক্সপ্রেস প্রতিযোগিতার প্রাথমিক ধাপে অএ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বর্ষের শিক্ষার্থীরার দল গঠন করে প্রতিযোগিতার অনলাইন রাউন্ডে অংশ নেয় এবং তন্মধ্যে ৭টি দল ফাইনালের জন্য মনোনীত হয় এবং তন্মধ্যে ২০১৮ সালের ৮ ডিসেম্বর “অক্স এন্ড হিউ প্রেজেন্টস টেক্সপ্রেস-২০১৮” এর চ্যাম্পিয়ন টাইটেল অর্জন করতে সক্ষম হয় “টিম এডরয়টিস”। প্রতিযোগিতায় যথাক্রমে ১ম ও ২য় রানার আপ হয় “টিম গেইম চেঞ্জারস” ও “টিম বিসর্গ”।

পরপর দুই বছরের সাফল্যের পর আবারও বুটেক্স বিজনেস ক্লাবের সার্বিক সহযোগিতায় আয়োজিত হয় বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয় বিজনেস ক্লাবের ফ্ল্যাগশিপ ইভেন্ট “টেক্সবিজ”এর ৩য় আসর।

বাংলাদেশের বৈদেশিক আয়ের ৮৩ শতাংশ ধারণ করে টেক্সটাইল শিল্প। আর এই টেক্সটাইল খাতের উপস্থিত সমস্যা এবং সামনের আগত সমস্যা নিয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ্যপুস্তকভিত্তিক শিক্ষার পাশাপাশি কারাখানার ব্যবসা বিষয়ক শিক্ষার ধারণা দেওয়ার জন্য ২০১৭ সাল থেকে টেক্সবিজ আয়োজন করে আসছে বুটেক্স বিজনেস ক্লাব। ২০১৯ সালের টেক্সবিজের ৩য় আসরে ২৫টি বিশ্ববিদ্যালয় ও টেক্সটাইল কলেজগুলো থেকে মোট ১৭৭ টি দল অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন করে । রেজিস্ট্রেশনের সব দলকে একটি কেস দেওয়া হয় এবং উক্ত কেসের সলিউশন সাবমিশনের সময় বেধে দেয়া হয়।তিনটি ধাপে আয়োজিত হয় টেক্সবিজ এর তৃতীয় আসর । প্রথম ধাপ তথা ইন্ট্রা ফেইজ ধাপটিতে শুধু বুটেক্সের ছাত্রছাত্রীরা অংশগ্রহণ করেন এবং প্রথম ৫টি দল পরবর্তী রাউন্ডে যাওয়ার যোগ্যতা লাভ করে। ২য় ধাপটি সারা দেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয়পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের জন্য উন্মুক্ত ছিল। এই ধাপে পূর্ববর্তী নির্বাচিত ৫টি দলসহ মোট ২৮টি দল অংশগ্রহণ করে। এদের মধ্যে থেকে গ্র্যান্ড ফিনালের জন্য ৮টি দল নির্বাচিত হয়। ৩য় ধাপে অর্থাৎ গ্র্যান্ড ফিনালেতে বাকি ৭টি দলকে পিছনে ফেলে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার যোগ্যতা অর্জন করে ‘ওলিগার্কি’।এছাড়া প্রথম ও দ্বিতীয় রানার্সআপ দল হিসেবে স্থান লাভ করে ‘স্ক্রোডিঞ্জার’স টিম’ এবং ‘বেনমিয়া’। তাদের হাতেও প্রাইজমানি হিসেবে ৩০ হাজার ও ২০ হাজার টাকা তুলে দেন প্রধান অতিথি। টেক্সবিজের আকর্ষণ বাড়াতে আরও একটি পুরস্কার যোগ করা হয় যা ‘ইয়ংস্টার অফ টেক্সবিজ’ নামে পরিচিতি পায় এবং এ পুরস্কারটি ঘরে আনে আইইউটি এর ‘স্টীম পাংক’যারা প্রাইজমানি হিসেবে ১০ হাজার টাকা জিতেছে।

বুটেক্স বিজনেস ক্লাব, বুটেক্সের অন্যতম একটি সক্রিয় ক্লাব যা শিক্ষার্থীদের নেতৃত্বের গুনাবলি এবং পেশাদারভিওিক দক্ষতা বৃদ্ধি করার জন্য একটি প্ল্যাটফর্ম হিসেবে কাজ করে যেতে সংকল্পবদ্ধ । ক্লাবটি বুটেক্সের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ব্যবসায়িক ধারণা গড়ে তুলতেও কাজ করে যাচ্ছে। বুটেক্স বিজনেস ক্লাব বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের পেশাদারভিওিক জ্ঞান এবং সার্বিক মানোন্নয়নের জন্য প্রতিবছর টেক্সবিজ,টেক্সপ্রেস,ইন্ট্রাপ্রিনোরিয়াল টক,প্রফেশনাল টক,সেমিনার সহ বহুবিধ কর্মশালা আয়োজন করতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

writer:
Abir Mohammad Sadi
BUTEX
Sr.Campus Ambassador,BUNON

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

” জাতীয় বস্ত্র দিবসে টেক্সটাইল বিষয়ক কুইজের আয়োজন করেছে সিটেক ক্যারিয়ার ক্লাব”

৪ ডিসেম্বর জাতীয় বস্ত্র দিবস ২০২১ উপলক্ষে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, জোরারগন্জ,চট্টগ্রাম (সিটেক) এর ক্যারিয়ার বিষয়ক ক্লাব "সিটেক ক্যারিয়ার ক্লাব" কর্তৃক সকল...

লিখিত অনুমোদন পেয়েছে সিটেক ক্যারিয়ার ক্লাবের নতুন কমিটি

টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, জোরারগন্জ, চট্টগ্রাম এর ক্যারিয়ার বিষয়ক ক্লাব " সিটেক ক্যারিয়ার ক্লাব" এর ২০২১-২২ সেশানের গঠিত নতুন কমিটিকে লিখিত অনুমোদন...

চট্টগ্রাম টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে সপ্তাহব্যাপী অল ওভার প্রিন্টিং ওয়েবিনার সম্পন্ন : মূল্যায়ন পরীক্ষা ১৪ নভেম্বর

অল ওভার প্রিন্টিং (All Over Printing) এবং ডিজাইন ডেভেলপমেন্ট (Design Development) এর ওপর চট্টগ্রাম টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ারিং কলেজে (সিটেক) AOPTB (All Over...

অধ্যক্ষের সাথে সিটেক ক্যারিয়ার ক্লাবের নবগঠিত কমিটির সৌজন্য সাক্ষাত

চট্টগ্রাম টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ (সিটেক) এর ক্যারিয়ার বিষয়ক সংগঠন সিটেক ক্যারিয়ার ক্লাবের ২০২১-২০২২ সেশনের নবগঠিত কমিটির সাথে অত্র কলেজের সম্মানিত অধ্যক্ষ...

শেখ কামাল টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের নতুন অধ্যক্ষ প্রকৌশলী নুরুল ইসলাম নাহিদ স্যার

ঝিনাইদহের সুনামধন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শেখ কামাল টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের নবনিযুক্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব গ্রহন করেছেন ইঞ্জিঃ নুরুল ইসলাম নাহিদ স্যার। তিনি এর...

আয়ারল্যান্ডে উচ্চশিক্ষা বিষয়ক সাক্ষাৎকার | Interview on Higher Study in Ireland

বাংলাদেশে টেক্সটাইল শিল্পের ক্রমেই দ্রুত বিকাশ ঘটে চলেছে এবং বিশ্বমানের টেক্সটাইল শিল্পের কাতারে বাংলাদেশের টেক্সটাইল শিল্প ইতোমধ্যেই নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম...

অক্টোবরে পোশাক রপ্তানি আগের ধারায় ফিরে পাওয়ার সম্ভাবনা

পোশাক শিল্পের জন্য আসছে সুখবর। ধারণা করা যাচ্ছে যে চলতি বছর অক্টোবরের মধ্যে পোশাক শিল্প রপ্তানি তার আগের ধারায় ফিরবে। গত...