28 C
Dhaka
Monday, September 27, 2021
Home Campus News IEOM WUB কর্তৃক আয়োজিত হয়েছে ক্যারিয়ার বিষয়ক সেমিনার

IEOM WUB কর্তৃক আয়োজিত হয়েছে ক্যারিয়ার বিষয়ক সেমিনার

প্রায় ১৭ মাসের করোনা মহামারির প্রভাবে শিক্ষা,স্বাস্থ্য ও অর্থনৈতিক সেক্টরে যে নিম্নমুখী অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে তা থেকে উত্তরনে নব উদ্যোমে, মেধার বিকিরণে, যোগ্যদের পরিচালনায় তরুন শিক্ষার্থীরা আবার সেই সোনালী দিনের সূর্যের ঠিকানা খুজে পাবে;এ আশা নিয়ে গত ৯ই সেপ্টেম্বর ২০২১, IEOM Society World University of Bangladesh Chapter কর্তৃক একটি ওয়েবিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানটিতে মিডিয়া পার্টনার হিসেবে ছিলো টেক্সটাইল ম্যাগাজিন বুনন।

ওয়েবিনারের বিষয় ছিলো “Career planning and opportunities in  Textile and Apparel Industries”

আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ এর মেকাট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট এর বিভাগীয় প্রধান Professor Dr Mizanur Rahman,আরো উপস্থিত ছিলেন  টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট এর বিভাগীয় প্রধান Asst. Prof. MD. Mostafizur Rahman.বিশেষ অতিথি হিসেবে Ask Apparel & Textiles Sourcing  এর চেয়ারম্যান এবং বুননের হেড অব অপারেশন  জনাব সালাউদ্দীন এবং MTM International এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর,জনাব মোসান্নেফ হোসেন ভূইয়া উপস্থিত ছিলেন।

প্রোগ্রামের শুরুতে তরুণ শিক্ষর্থীদের ক্যারিয়ার Build-up এবং planning  প্রসঙ্গে  জনাব সালা উদ্দীন সকলের উদ্দেশ্যে জানান-‘টেক্সটাইল ও এ্যাপারেল ইন্ড্রাস্টি তরুনদের ক্যারিয়ার গড়ার জন্য একটি সম্ভাবনাময় ক্ষেত্র । অতীতে   দক্ষ জনবল, পর্যাপ্ত মেশিনের সরন্ঞ্জামের অভাবে নানা ধরনের চ্যালেন্জের সম্মুখীন হতে হয়েছিল সবাইকে। তবে, এখন এ সেক্টরে আধুনিক প্রযুক্তি এসেছে এখনকার টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ারিং পড়া শিক্ষার্থীরা  ২০  বছর এগিয়ে আছেন। তাই, আমাদের দেশের তরুন দের জন্য টেক্সলাইল ইন্ডাস্ট্রি তে ক্যারিয়ার গড়ার জন্য রয়েছে বিশাল সুযোগ। শুধু দেশেই নয় দেশের বাইরে ও এর চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলছে।তারই সাথে উদ্যোক্তা হওয়ার সব থেকে সহজ জায়গা হলো গার্মেন্টস ইন্ড্রাস্টি।এছাড়াও তিনি আরো বলেন,“ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়া অবস্থায় শিক্ষার্থীদের নিজেদেরতৈরি করা প্রয়োজন, ইন্ডাস্ট্রি শিক্ষার্থীদের পিছনে ঘুরবে না বরং নিজেদের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের জন্য তাদের ইন্ডাস্ট্রির পিছনে ঘুরতে হবে এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর উচিত ইন্ডাস্ট্রি গুলোর সাথে কোলাবোরেশন করা ; এতে করে শিক্ষার্থীরাএখন থেকেই নিজেদের প্রস্তুত করতে পারবে।”

৪র্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেন্জ মোকাবেলা প্রসঙ্গে জনাব মোসান্নেফ হোসেন ভূইয়া জানান, “বিশ্ব বাজারে নিজেদের কর্তৃত্ব বজায় রাখতে হলে ৪র্থ শিল্প বিপ্লবের নতুন প্রযুক্তি গুলোর ব্যবহার সম্পর্কে জানতে হবে এবং সেটির সাথে নিজেদের খাপখাইয়ে নিতে হবে।আজকের competitive মার্কেটে ভিয়েতনাম, চায়নার মতো দেশ গুলোর ম্যানুফ্যাকচারিং চার্জ বেশি হওয়ার শর্তে ও তারা এগিয়ে আছে কারণ, তারা নতুন প্রযুক্তির সাথে মানিয়ে নিতে পেরেছে।তরুণ শিক্ষার্থীদের এ প্রযুক্তির ওপর দক্ষতা অর্জনের প্রয়োজন আছে বলে তিনি মনে করেন।”

অনুষ্ঠানটি টেক্সটাইল বিভাগ এর শিক্ষার্থী,  Director of Media;IEOM society এবং বুনন এর রিসার্চ এসিস্ট্যান্ট ‘আয়েশা জুলকারনাইন’ মডারেট করেন।

এছাড়াও মেকাট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট এর বিভাগীয় প্রধান Professor Dr Mizanur Rahman বলেন, “উন্নত দেশ গুলো Industry এবং University এর মধ্যে যে দূরত্ব রয়েছে সেটা গবেষনা ও অন্যান্য মাধ্যম অবলম্বন করে কমিয়ে আনতে পেরেছে। আমারা ও চেষ্টা  করছি বিশ্ববিদ্যালয় গুলোর সাথে ইন্ড্রাস্টির  সেতুবন্ধন তৈরি করতে এবং তারই সাথে শিক্ষার্থীদের কম্পিউটার এর স্কিলস পূর্ব থেকে আয়ত্ত করে রাখা উচিত। এটি এই তথ্য প্রযুক্তির যুগে অন্যদের চাইতে প্রতিযোগিতায় অনেক বেশি এগিয়ে রাখবে। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে Textile Engineering বিভাগে অনেক গবেষণা  চলছে।”

একজন শিক্ষার্থী হিসেবে টেক্সটাইল কিংবা এপারেল ইন্ডাস্ট্রিগুলোতে শিক্ষার্থীরা তাদের গবেষণার প্রভাবে কিভাবে ইন্ডাস্ট্রির সাথে সেতুবন্ধন তৈরি করতে পারে, এ প্রসঙ্গে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট এর বিভাগীয় প্রধান  মোস্তাফিজুর রহমান জানান, “আমাদের  এ সেক্টরে অনেক ছাত্র আছে, যারা গবেষণা  করতে আগ্রহী  কিন্তু  তারা উপযুক্ত প্লাটফর্ম পাচ্ছে না। গবেষণার জন্য  যে সার্পোট দরকার ইন্ড্রাস্টিগুলো থেকে সার্পোট পাওয়ার ক্ষেত্রে সে ঘাটতি  আছে বলে তিনি মনে করেন।” তিনি আরো বলেন, গত চার দশকে আমাদের টেক্সটাইল সেক্টর  অনেক এগিয়ে গিয়েছে কিন্তু এখনও raw materials গুলো অন্য দেশ থেকে আনতে হচ্ছে। আমদের দেশে গবেষণার  ঘাটতি পূরণ করতে পারলে আমরা সম্পূর্ণ সাপ্লাই চেইনটা মেইনটেইন করতে পারবো বলে আশা ব্যাক্ত করেছেন তিনি।উক্ত  ওয়েবিনারটি শিক্ষার্থী এবং ইন্ডাস্ট্রি এর মদ্ধ্যে গ্যাপ পূরণে সহায়ক হিসেবেও কাজ করবে বলে তিনি বিশ্বাস করেন।

রিপোর্টার:
Abdullah Bin Taslim
HR & ODT, BUNON
World University of Bangladesh

Most Popular

এওপিটিবি’র মিলনমেলা

সমগ্র বাংলাদেশের অল ওভার প্রিন্টিং সেক্টর নিয়ে কাজ করা সকল ইঞ্জিনিয়ার ও টেকনোলজিস্টদের প্রাণের সংগঠন “অল ওভার প্রিন্টিং টেকনোলজিস্টস অব বাংলাদেশ”।সংগঠনটির...

ভিয়েতনামের বিকল্প খুজঁছে বিশ্বের বিভিন্ন খুচরা বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান

সাধারনত যে সকল খুচরা বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানগুলো জুতা ও পোশাকের জন্য ভিয়েতনামের কারখানাগুলোর ওপর নির্ভরশীল তারা ভিয়েতনামের বিধিনিষেধের ব্যাপারে খুবই চিন্তিত। যদিও...

অনাবিল প্রশান্তির মনোরম পরিবেশে গড়ে উঠেছে ফতুল্লা এপারেল

তৈরী পোশাক শিল্প বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের প্রধান হাতিয়ার। দেশের মোট রফতানি আয়ের  ৮৪% আসে পোশাক খাত থেকে। তাই দিন দিন দেশে...

রপ্তানিতে ভিয়েতনামকে ছাড়িয়ে যাওয়ার জন্য বাণিজ্য নীতির সংস্কারের বিকল্প নেই : বিশেষজ্ঞরা

ব্যাপক বাণিজ্য কূটনীতির সংস্কার এবং অর্থনৈতিক নীতির উন্মুক্ততা ভিয়েতনামকে আজ সেরা ২০ টি দেশের তালিকায় আসতে সাহায্য করেছে। উদাহরনসরূপ ১৯৮০-৯০ সালের...

বুটেক্সে অনলাইন ক্লাস শুরু | Online Class started in BUTEX

করোনা মহামারীতে বিভিন্ন সেক্টরের সাথে তাল মিলিয়ে দেশের এডুকেশন সেক্টরেও নেমে আসে স্থবিরতা,বন্ধ হয়ে যায় দেশের সকল স্কুল-কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ সব ধরনের...

শিল্পনীতির সীমাবদ্ধতা ও সম্ভাবনা

রবিবার(২৯ নভেম্বর) ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিয়াই) 'শিল্পনীতির সীমাবদ্ধতা ও সম্ভাবনা' শীর্ষক একটি অনলাইন ওয়েবনিয়ার আয়োজন করে যেখানে কুটির,...

সার্সটেক ক্যারিয়ার ক্লাবের পথচলা | Journey of SARSTEC Career Club.

বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, বরিশাল এর ক্যারিয়ার ভিত্তিক সংগঠন সার্সটেক ক্যারিয়ার ক্লাব (SCC)।