20 C
Dhaka
Thursday, December 9, 2021
Home News & Analysis Association News "ইনস্টিটিউশন অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারস এন্ড টেকনোলজিস্টস" (আইটিইটি) | Institution of Textile Engineers...

“ইনস্টিটিউশন অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারস এন্ড টেকনোলজিস্টস” (আইটিইটি) | Institution of Textile Engineers and Technologists (ITET)

“ইনস্টিটিউশন অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারস এন্ড টেকনোলজিস্টস” সংক্ষেপে “আইটিইটি” হিসেবে বহুল পরিচিত এবং এটি বস্ত্র প্রকৌশলীদের একটি প্রাচীনতম ও প্রভাবশালী পেশাদার সংগঠন। এটি বাংলাদেশের টেক্সটাইল শিল্পে সক্রিয়ভাবে কাজ করা সমস্ত টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার এবং প্রযুক্তিবিদদের জন্য একটি বটবৃক্ষ হিসেবে কাজ করে আসছে সৃষ্টিলগ্ন থেকেই। চার হাজারেরও বেশি বাংলাদেশী টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার এবং টেকনোলজিস্টদের প্রতিনিধিত্ব করে আইটিইটি ১৯৮৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় এবং প্রতিষ্ঠার সূচনালগ্ন থেকেই এই সংগঠনটি বস্ত্র প্রকৌশলীদের মধ্যকর পারস্পরিক সম্পর্কের উন্নয়নে এবং বাংলাদেশের তৈরি পোশাকশিল্পের উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে অন্যতম পরামর্শদাতা সংঘঠন হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে।

“ইনস্টিটিউশন অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারস এন্ড টেকনোলজিস্টস ” অথবা “আইটিইটি’ নামে বস্ত্র প্রকৌশলীদের একটি সংঘবদ্ধ সংগঠন তৈরির জন্য বেশ কয়েকজন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার এবং টেকনোলজিস্টের সভা ১৯৮৩ সালের ১৫ ই আগস্ট ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয় এবং উক্ত সভায় প্রস্তাবিত প্রতিষ্ঠানের গঠনতন্ত্রের অন্যান্য বিষয়গুলির পাশাপাশি খসড়া তৈরি করার জন্য একটি উপদেষ্টা কমিটি এবং প্রস্তুতিমূলক কমিটিও গঠন করা হয়েছিল এবং “ইনস্টিটিউশন অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারস এন্ড টেকনোলজিস্টস”,সংক্ষেপে বহুল পরিচিত “ITET”, প্রায় ৩৬ বছর আগে ১৯৮৩ সালের ১৭ ই আগস্ট স্থাপিত হয় এবং এর বর্তমান সদরদপ্তরের কেন্দ্রস্থান হচ্ছে বাড়ি নং ৬, রোড নং ২, সেক্টর ১২,উত্তরা, ঢাকা-১২৩০, বাংলাদেশ।আই টি ই টি -এর মহাসচিব হচ্ছেন সাখাওয়াত হোসেন তালুকদার,সভাপতি শফিকুর রহমান,জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি মোহাম্মদ সেলিম রেজা,সহসভাপতি সৈয়দ আতিকুর রহমান,শামীম রহমান। এছাড়াও পরিচালনা পরিষদে রয়েছেন, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির কিছু গুরুত্বপূর্ন ব্যক্তিত্ব যেমন : শরিফুল ইসলাম (সাংগঠনিক সম্পাদক),তন্ময় সাহা (কোষাধ্যক্ষ),শোজল বিষ্ণু (শিক্ষা ও সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক),জুয়েল রানা (প্রেস ও প্রকাশনা সম্পাদক),আরমান খোন্দকার রকি (আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক),আল মিরানী (কর্মসংস্থান এবং বিনিয়োগ সম্পাদক),মামুনুর নাসিম শৌরভ (সমাজকল্যাণ সম্পাদক),রুমা শোরকর (মহিলা বিষয়ক সম্পাদক) প্রমুখ। “আইটিইটি” হলো মূলত বুটেক্স এর টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ারদের সংগঠন, এর সাথে প্রধানত বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের যোগসূত্র রয়েছে, কিন্তু পরে নিটার,বাফট ও বুটেক্স অধিভুক্ত সরকারি টেক্সটাইল কলেজগুলোর সাথেও আইটিইটির যোগসূত্র স্থাপিত হয়।ঢাকা শহরের উত্তরা সেক্টরে এই প্রতিষ্ঠানের সদর দফতর রয়েছে এবং এটি আইইবির টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সাথে দৃঢ়ভাবে সম্পর্কযুক্ত।তাছাড়া, বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পের উন্নয়নের ধারা বজায় রাখতে BKMEA, BGMEA এর সাথেও একসাথে কাজ করে যাচ্ছে “আইটিইটি”।

“আইটিইটি ” সৃষ্টিলগ্ন হতেই টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারদের এক বৃহৎ পরিবার হিসেবে কাজ করে আসছে এবং অএ দেশের টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ারদের মধ্যে ভ্রাতৃত্বের সেতুবন্ধন হিসেবে ভূমিকা পালন করে আসছে। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই ITET বস্ত্র প্রকৌশলীদের দ্বারা পরিচালিত হয়ে আসছে এবং বস্ত্র খাতে উদ্ভূত বহুমাত্রিক সমস্যার দ্রুত ও কার্যকারী সমাধান দিয়ে আসছে। এছাড়া টেক্সটাইল পরিবারের ভ্রাতৃত্বের বন্ধনকে দৃঢ় করতে প্রতিবছর বার্ষিক মিলনমেলা, পারিবারিক মিলনমেলা,বনভোজন,টেক্সটাইল সেমিনার,সংবর্ধনা অনুষ্ঠান, ইফতার মাহফিল, স্পোর্টস-টুর্নামেন্ট সহ বিভিন্ন বড় বড় প্রোগ্রাম আয়োজিত করে আসছে। বস্ত্র প্রকৌশলীদের মধ্যকর ভ্রাতৃত্বের বন্ধনকে আরও দৃঢ় করার এরই ধারাবাহিকতায় “ইনস্টিটিউশন অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারস এন্ড টেকনোলজিস্টস”অথবা”আইটিইটি”,বাংলাদেশ, ২০১২ সালের ২৪ শে ফেব্রুয়ারী, নরসিংদীতে একটি বার্ষিক বনভোজনের আয়োজন করে, যার নামকরণ করা হয় “ড্রিম টাচ-২০১২” এবং এতে আইটিইটি এর প্রায় ২০০০ সদস্য এবং তাদের পরিবারের একটি বিশাল সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছিল।এরপর,”ইনস্টিটিউশন অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারস এন্ড টেকনোলজিস্টস” বা আইটিইটি এর সার্বিক সহযোগিতায় টেক্সটাইল শিল্পে কর্মরত অনেক পেশাদারদের অংশগ্রহণের মাধ্যমে ২০১৫ সালে সূচনালগ্নেই বুটেক্সের ওসমানী হল ক্রিকেট মাঠে বিভিন্ন দলের অংশগ্রহনে ক্রিকেট টুর্নামেন্ট শুরু হয় এবং প্রায় দুই মাসের একটি দুর্দান্ত টুর্নামেন্ট শেষে ২০১৫ সালের ২০ শে ফেব্রুয়ারির ফাইনালে” ঢাকা স্ট্রাইকার্স “নামে একটি দল চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল এবং সেদিন রাতে এক মহাভোজের মাধ্যমে পর্দা নামে সেই ক্রিকেট টুর্নামেন্টটির।

আইটিইটি প্রতিবছরই ইফতার মাহফিল করে থাকে যেখানে শুধু বস্ত্র প্রকৌশলী নয়,বরং বুটেক্সের শিক্ষক-শিক্ষিকা, শিক্ষার্থীবৃন্দ ও উপস্থিত থাকেন,সাথে উপস্থিত থাকেন টেক্সটাইলের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গও।

“ইনস্টিটিউশন অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারস এন্ড টেকনোলজিস্টস”বা আইটিইটি ২ রা জুন, ২০১৭, ঢাকার গল্ফ গার্ডেনে ইফটার পার্টি এবং দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে এবং সেখানে আসাদুজ্জামান বলেন ,” বাংলাদেশের টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়াররা বাংলাদেশকে বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে সক্ষমতার পরিচয় দিয়ে যাচ্ছেন।”-যার ফলস্বরূপ আমাদের “Made In Bangladesh ” ট্যাগ আজ বিশ্বের সর্বএ সুপরিচিত ও সুপ্রশংসিত।

আইটিইটি এর সর্বশেষ দায়িত্ববদল হয় ২০১৭ সালে।আইটিইটি নির্বাচন কমিশন ২০১৭ সালের ১৬ জুন, নতুন ‘কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি’ ঘোষণা করে এবং প্রধান নির্বাচন কমিশন, প্রফেসর মোঃ মনিরুল ইসলাম, রেজিস্ট্রার, বুটেক্স ; বুটেক্স সম্মেলন কক্ষে ১৬ জুন, ২০১৭ তারিখে আইটিইটি-র ১৪ তম কাউন্সিলের সদ্য নির্বাচিত নির্বাহী কমিটির (ইসি) ২৭ জন সদস্যদের নাম ঘোষণা করেন। কমিটির পূর্ণ প্যানেল বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয় এবং আইটিইটির নব নির্বাচিত সভাপতি হিসাবে মোঃ শফিকুর রহমান , সিনিয়র সহ-সভাপতি হিসাবে মোঃ সেলিম রেজা এবং মহাসচিব হিসাবে মোঃ সাখাওয়াত হোসেন তালুকদার সহ আরও ২৪ জন দায়িত্বপ্রাপ্ত হন।এরপর, “ইনস্টিটিউশন অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারস এন্ড টেকনোলজিস্টস” বা “আইটিইটি” এর নবনির্বাচিত কমিটি মেম্বাররা ঢাকার স্পেকট্রা কনভেনশন সেন্টারে
” হ্যান্ডওভার অ্যান্ড টেকওভার” অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ১০ জুলাই, ২০১৭ এ বিদায়ী কমিটির কাছ থেকে দায়িত্ব বুঝে নেন। আইটিইটি এর প্রাক্তন সভাপতি (১৩ তম কাউন্সিল) ইঞ্জিনিয়ার.মোঃ শামসুজ্জামান, নতুন আইটিইটি সভাপতি (১৪ তম কাউন্সিল) ইঞ্জিনিয়ার.মোঃ শফিকুর রহমানকে দায়িত্ব অর্পণ করেন। আইটিইটি শুধু বাংলাদেশের বস্ত্র খাতের উন্নয়ন আর টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ারদের মধ্যে ভ্রাতৃত্বের বন্ধন দৃঢ় করতেই কাজ করেনি, কাজ করেছে সুবিধাবঞ্চিত, অভাবী ও বিপদগ্রস্ত মানুষদের পাশে দাঁড়াতেও, যার দরুন আইটিইটি সাধারণ মানুষের দুঃসময়েও এগিয়ে আসতো।

“ইনস্টিটিউশন অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারস এন্ড টেকনোলজিস্টস” বা “আইটিইটি”, ২৫ আগস্ট, ২০১৭ তারিখে সিরাজগঞ্জ, জামালপুর ও ফরিদপুর নামক তিনটি জেলাতে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের ত্রাণ বিতরণ করে। নবনির্বাচিত আইটিইটি কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির তিনটি দল ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে তিনটি জেলা পরিদর্শন করে এবং ওইসব জেলার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের দ্বারে ত্রাণ পৌঁছে দেন।আইটিইটি মহাসচিব ইঞ্জিনিয়ার. মোঃ সাখাওয়াত হোসেন তালুকদার,সহ-সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার. মোঃ সাখাওয়াত হোসেন,সেক্রেটারি জেনারেল ইঞ্জিনিয়ার মোঃ তৌহিদুল ইসলাম কাকন, নির্বাহী সদস্য ইঞ্জিনিয়ার.এস.এম. আবদুর রহমান এবং আইটিইটি সাধারণ সদস্যরা ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

এরপর,পরবর্তী সময়েও আইটিইটি বহুবিধ মানবকল্যানমূলক কাজ করেছে এবং নিজেদের লক্ষ্য পূরনে কাজ করে গেছে।

২০১৭ সালের ৮ অক্টোবর, টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যান্ড টেকনোলজিস্টস (আইটিইটি), বাংলাদেশের ১৪ তম কাউন্সিলের নবনির্বাচিত সদস্যরা, রাজধানীর টিসিবি মিলনায়তনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক (তৎকালীন)জনাব মাহবুবুল আলম হানিফের সাথে সাক্ষাত করেন এবং শুভেচ্ছা বিনিময় করেন এবং তারা ৫০ বিলিয়ন রফতানির ভিশন-২০২১, টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার্থীদের জন্য বিসিএস ক্যাডার এবং আইটিইটির জন্য জমি সহ টেক্সটাইল সম্প্রদায়ের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মাহবুবুল আলম হানিফ, এমপির সাথে আলোচনা করেন।এরপর, ২০১৭ সালের ১৭ অক্টোবর, আবাসন ও গণপূর্ত মন্ত্রী, ইঞ্জিনিয়ার. মোশারফ হোসেন এমপি(তৎকালীন) আইটিইটি কে আশ্বাস দেন যে, সরকারের সার্বিক সহযোগিতায় এক মাসের মধ্যে ঢাকার উত্তরায় ইন্সটিটিউশন অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার্স ও টেকনোলজিস্টস (আইটিইটি) এর নিজস্ব হেডকোয়ার্টার এর জন্য জমির সুব্যবস্থা করা হবে যার ধারাবাহিকতায় ২০১৮ সালের ২৬ জানুয়ারি সংগঠনটি রাজধানীর উত্তরায় নবনির্মিত হেড-কোয়ারটার এর উদ্বোধনকার্য উদযাপন করে এবং আইটিইটিটির নব নির্মিত এই হেডকোয়ার্টারের ঠিকানা হচ্ছে – বাড়ি নং ৬, রোড নং ২, সেক্টর ১২, উত্তরা, ঢাকা ১২৩০।

আইটিইটি মূলত বুটেক্সের টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ারদের সংগঠন হওয়ায় মাঝেমধ্যেই বুটেক্সে আইটিইটি এর বিভিন্ন ধরনের প্রোগ্রাম বা ইভেন্ট আয়োজিত হয়ে থাকে এবং অএ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোগ্রাম গুলোতেও সংগঠনটির সম্মানিত সদস্যবৃন্দের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়।এরই ধারাবাহিকতায় “ইনস্টিটিউশন অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারস এন্ড টেকনোলজিস্টস”
বা আইটিইটি এর বার্ষিক পারিবারিক-দিবস বা”ফ্যামিল-ডে” বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয় (বুটেক্স) ক্যাম্পাস প্রাঙ্গনে , ২০১৮ সালের ২ মার্চ পালন করা হয়, যা আইটিইটিটির ১৪ তম কাউন্সিলের নবনির্বাচিত কমিটি দ্বারা আয়োজিত হয়েছিল। অনুষ্ঠানটিতে উপস্থিত ছিলেন আইটিইটিটির প্রায় ২০০০ সদস্য, যার দরুন স্পষ্টভাবে বলা যায় যে, তা বস্ত্র প্রকৌশল পরিবারের এক বিশাল সমাগম ছিল।

আইটিইটি সর্বদাই বস্ত্র খাতের সমস্যাগুলো চিহ্নিতকরন এবং দ্রুত কার্যকরী পদক্ষেপের মাধ্যমে উন্নয়নের ধারা বহমান রাখতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ একটি সংগঠন। ২০১৮ সালে বাংলাদেশের নিট সেক্টরে বেশ কিছু সমস্যা উদ্ভূত হয় যেখানে নিট সেক্টর সর্বদাই একটি মূল চালিকাশক্তি হিসেবে কাজ করে। তাই,২০১৮ সালের, ২৫ শে এপ্রিল, দেশের নিট সেক্টরের বিশিষ্ট ব্যক্তিরা ঢাকার একটি হোটেলে একটি ITET এর সার্বিক সহযোগিতায় আয়োজিত গোলটেবিল আলোচনায় সমবেত হয়ে বাংলাদেশের নিট সেক্টরের চ্যালেঞ্জগুলি নিয়ে আলোচনা করেন এবং সমস্যার সমাধানের উপায়ের পরামর্শ বিনিময় করেন। এই আলোচনা সভায় যারা মতামত বিনিময় করেন তাদের মধ্যে ছিলেন সভাপতি শফিকুর রহমান ;জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি মোহাম্মদ সেলিম রেজা ; প্রফেসর. ইঞ্জিনিয়ার. ড.মাশুদ আহমেদ, প্রাক্তন উপাচার্য বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়;ইঞ্জিনিয়ার মোঃ শামসুজ্জামান সিআইপি, ব্যবস্থাপনা পরিচালক, মাইক্রো ফাইবার গ্রুপ ; ইঞ্জিনিয়ার মোঃ মোজাফফর হোসেন, সিম গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ;এহসানুল করিম কায়সার, প্রাক্তন এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর, এস্কায়ার গ্রুপ ;
ইঞ্জিনিয়ার প্রফেসর ডঃআইয়ুব নবী খান, প্রাক্তন উপাচার্য, বিইউএফটি; ইঞ্জিনিয়ার মোঃসায়েদ ফরিদ আহম্মেদ,ব্যবস্থাপনা পরিচালক, ইউনিক ডিজাইনার্স লিমিটেড ;জিয়াউল হক, ম্যানেজিং ডিরেক্টর, অ্যামেজিং ফ্যাশনস লিমিটেড ;ইঞ্জিনিয়ার মোঃশাওপন কুমার ঘোষ, নির্বাহী পরিচালক, এসএম গ্রুপ;
ইঞ্জিনিয়ার মোঃ মল্লিক, সিনিয়র জেনারেল ম্যানেজার, ইউনিভার্সাল ইয়ার্ন- ডাইং লিমিটেড;
ইঞ্জিনিয়ার মোঃইব্রাহিম মোল্লা, টেকনিক্যাল ডিরেক্টর, অউকো-টেক্স গ্রুপ;মোঃ মনিরুজ্জামান বাদশা, ব্যবস্থাপনা পরিচালক, ফিয়াট ফ্যাশন ;
মোঃ সাখাওয়াত হোসেন, কান্ট্রি ম্যানেজার, শেলশাম ট্রেডিং কো লিমিটেড ;সাইফুল ইসলাম শাহিন, নির্বাহী পরিচালক,ইমপ্রেস গ্রুপ;শামীম রহমান, পরিচালক, সাউথ-ওয়েস্ট কম্পোজিট ;আবুল হোসেন সেন্টু, ব্যবস্থাপনা পরিচালক, এ্যাসিয়ালিঙ্ক অ্যাপারেলস (বিডি) লিমিটেড ;মোঃ মনজুর হাসান, পরিচালক, মেঘনা এক্সিকিউটিভ হোল্ডিংস;এ.এফ. এম তৌহিদুল আলম, নির্বাহী পরিচালক, সিলকেন সিউয়িং লিমিটেড;তাসদিকুল আলম, জেনারেল ম্যানেজার, বিপণন ও মার্চেন্ডাইজিং, নিট এশিয়া লিমিটেড ; আনোয়ারুল হোসেন, মহাব্যবস্থাপক, আলিম নিট (বিডি) লিমিটেড , মন্ডল গ্রুপ ;ইঞ্জিনিয়ার মোঃ সাখাওয়াত হোসেন তালুকদার, সেক্রেটারি-জেনারেল, আইটিইটি সহ আরও অনেকে। তারা চলমান সমস্যাগুলো নিয়ে কথা বলেন এবং আলোচনার মাধ্যমে অনেক কার্যকারী সমাধানও আসে, যার ফলস্বরূপ ভবিষ্যতেও এমন আরো মার্চেন্ডাইজিং,ওয়েভিং, নিটিং সেমিনার আয়োজন করার পরিকল্পনার কথা বলে ‘আইটিইটি”।

২০১৮ সালের ১৮ মে ইনস্টিটিউশন অব টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার্স এবং টেকনোলজিস্ট (আইটিইটি) বুটেক্স অধিভুক্ত চারটি সরকারি কলেজকে আইটিইটি এর সদস্যপদ স্বীকতি দেয়,এরা হচ্ছে : নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ,
পাবনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, বরিশাল টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ এবং জোরারগঞ্জ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, চট্টগ্রাম।

টেক্সটাইলের ভ্রাতৃত্বের বন্ধনকে অটুট রাখতে প্রতিবছরের মতো ২০১৮ সালেও আইটিইটি ইফতার ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে। এরই ধারাবাহিকতায় আইটিইটি ২১ মে,২০১৮ তারিখে রাজধানীর গল্ফ গার্ডেনে ইফতার ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে।

আইটিইটি মাঝে মাঝেই টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ারদের ভালো কাজকে উৎসাহিত করার জন্য সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে। “ইনস্টিটিউট অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যান্ড টেকনোলজিস্ট” অথবা “আইটিইটি” ৩১ জুলাই, ২০১৯ তারিখে, ঢাকায় সংসদ সদস্য, সরকারের মনোনীতকৃত সিআইপি এবং পুরষ্কার প্রাপ্ত টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারদের জন্য সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
বস্ত্র প্রকৌশলীদের ভ্রাতৃত্বের বন্ধনকে অটুট রাখতে বিশ্বাসী “আইটিইটি” প্রতিবছর বার্ষিক বনভোজনের ব্যবস্থা করে থাকে,আর এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে ২০২০ সালের ২৪ জানুয়ারি, আইটিইটি এর নবনির্বাচিত কমিটির উদ্যোগে সাভার গল্ফ ক্লাবে
“ইনস্টিটিউশন অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারস এন্ড টেকনোলজিস্টস” এর বার্ষিক বনভোজন অনুষ্ঠিত হয় যেখানে ২০০০ এর বেশি টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ার এবং তাদের পরিবারের এক বিশাল সমাগম ঘটে।

আইটিইটি সবসময় স্বদেশের নিয়মশৃঙ্খলা রক্ষা করতে স্বচেষ্ট এবং এক্ষেত্রে তারা কোনো অন্যায়কে প্রশয় দেয় না।২০২০ সালে কিছু বিদেশী টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ার ও স্বদেশীরাও নিয়মশৃঙ্খলা ভঙ্গ করেছিলো, তখন তার প্রতিরোধ করে আইটিইটি।আইটিইটি ১১ সদস্যের কমিটি করে ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে, বিওআইয়ের(BOI) নির্বাহী চেয়ারম্যানের সাথে বৈঠক করে এবং বিদেশী বিশেষজ্ঞদের মধ্যে যারা সরকারের নিয়ম মেনে কাজ করে না ও দেশের কিছু টেক্সটাইল মিলে, যেখানে নিয়মানুসারে কাজ করা হয় না এবং স্থানীয় কিছু টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ার সরকারের কর ফাঁকি দেওয়ার জন্য অর্থ-পাচার করে -সে সকল বিষয় নিয়ে দুই ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে আলোচনা হয় এবং এই সম্পর্কে আইটিইটি থেকে একটি চিঠিও হস্তান্তর করা হয় সমস্ত সম্ভাব্য উপায়ে বিওআইয়কে(BOI)এসকল অনৈতিক কর্মকান্ডে জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করতে।
আইটিইটি সবসময় দেশের পোশাক শিল্পের উন্নয়ন নিয়ে চিন্তা করে, পরিকল্পনা করে এবং পরিকল্পনানুযায়ী কাজ করে থাকে। করোনার কারনে যখন বাংলাদেশের বস্ত্রশিল্প অনেক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছিল, একের পর এক অর্ডার বাতিল হচ্ছিল, তখনই সেসব নিয়ে পরিকল্পনানুযায়ী কাজ করা শুরু করে আইটিইটি।এরই ধারাবাহিকতায়, আইটিইটি এর প্রায় ২০ জন শিল্পপতি ও বিশেষজ্ঞ, ২০২০ সালের ২৩ শে এপ্রিল দুই পর্যায়ে ‘বাংলাদেশের পোশাক খাতের উপর কোভিড -১৯ এর প্রভাব এবং ভবিষ্যতের পদক্ষেপ’ নিয়ে আলোচনা এবং মতামত বিনিময় করেন ।

আইটিইটি প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই সবসময় সংগঠনটির সদস্যদের উন্নতির জন্য কাজ করে আসছে। করোনায় মানুষদের ঘরে থাকতে বলা হলেও দেশের অর্থনীতি সচল রাখতে পোশাক খাতের কারখানাগুলো চালু রাখা হয়েছে। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাতে কাজ করছে হাজার হাজার বস্ত্র প্রকৌশলী।এ সকল বস্ত্র প্রকৌশলী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে বস্ত্র প্রকৌশলীদের সংগঠন” ইনস্টিটিউট অব টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার্স এন্ড টেকনোলজিস্টস ” বা “আইটিইটি”।সংগঠনের আক্রান্ত সদস্যদের করোনা টেস্টের জন্য একটি বেসরকারি স্বাস্থ্য সংস্থার সঙ্গে এরই মধ্যে চুক্তি করেছে তারা। এ চুক্তির আওতায় ধানমন্ডির বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজে টেস্টের জন্য স্যাম্পল প্রদান করতে পারবে সংগঠনটির সদস্যরা, এছাড়াও গুলশান সোসাইটিতে টেস্ট করাতে পারবেন। আইটিইটির সদস্যরা নিজ বাসায় অবস্থান করেও করোনা টেস্টের জন্য স্যাম্পল প্রদান করতে পারবেন।এছাড়া অসুস্থ অবস্থায় ডাক্তারদের পরামর্শ গ্রহণের জন্য দুটি হটলাইন চালু করা হয়েছে।

বস্তুত, “আইটিইটি” বাংলাদেশের বস্ত্র প্রকৌশলীদের এক বৃহৎ পরিবার এবং সংগঠনটি বস্ত্র খাতের উন্নয়নে,টেক্সটাইলের ক্রমবিকাশে এবং টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ারদের ভ্রাতৃত্বের বন্ধনকে সুদৃঢ় রাখতে সর্বদা কাজ করে যেতে সংকল্পবদ্ধ।

writer :
Abir Mohammad Sadi
BUTEX
Sr.Campus Ambassador, BUNON

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

” জাতীয় বস্ত্র দিবসে টেক্সটাইল বিষয়ক কুইজের আয়োজন করেছে সিটেক ক্যারিয়ার ক্লাব”

৪ ডিসেম্বর জাতীয় বস্ত্র দিবস ২০২১ উপলক্ষে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, জোরারগন্জ,চট্টগ্রাম (সিটেক) এর ক্যারিয়ার বিষয়ক ক্লাব "সিটেক ক্যারিয়ার ক্লাব" কর্তৃক সকল...

লিখিত অনুমোদন পেয়েছে সিটেক ক্যারিয়ার ক্লাবের নতুন কমিটি

টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, জোরারগন্জ, চট্টগ্রাম এর ক্যারিয়ার বিষয়ক ক্লাব " সিটেক ক্যারিয়ার ক্লাব" এর ২০২১-২২ সেশানের গঠিত নতুন কমিটিকে লিখিত অনুমোদন...

চট্টগ্রাম টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে সপ্তাহব্যাপী অল ওভার প্রিন্টিং ওয়েবিনার সম্পন্ন : মূল্যায়ন পরীক্ষা ১৪ নভেম্বর

অল ওভার প্রিন্টিং (All Over Printing) এবং ডিজাইন ডেভেলপমেন্ট (Design Development) এর ওপর চট্টগ্রাম টেক্সটাইল ইন্জিনিয়ারিং কলেজে (সিটেক) AOPTB (All Over...

অধ্যক্ষের সাথে সিটেক ক্যারিয়ার ক্লাবের নবগঠিত কমিটির সৌজন্য সাক্ষাত

চট্টগ্রাম টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ (সিটেক) এর ক্যারিয়ার বিষয়ক সংগঠন সিটেক ক্যারিয়ার ক্লাবের ২০২১-২০২২ সেশনের নবগঠিত কমিটির সাথে অত্র কলেজের সম্মানিত অধ্যক্ষ...

ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ ডিবেটিং ক্লাব এর উদ্যোগে অনলাইন বিতর্ক মঞ্চ আয়োজিত | WUBDC organised a online debating session.

বিতার্কিকরাই জীবনের জটিল সময় গুলোতে যুক্তি দিয়ে মুক্তি খুঁজে আনেন।যারা বিতর্ক নিয়ে চর্চা করেন বা বিতর্কের গহীন জলে নিজেকে ডুবিয়ে দেন...

টেকসই ফ্যাশন এর উপর জোর দেওয়ার আহ্বান জানালো “ফ্র‍্যাঙ্কফুর্ট ফ্যাশন এসডিজি সামিট”

গত ৭ জুলাই অনুষ্ঠিত হওয়া "ফ্র‍্যাঙ্কফুর্ট ফ্যাশন এসডিজি সামিট", যা "সচেতন ফ্যাশন ক্যাম্পেইন" এবং জাতিসংঘ অফিসের সহায়তায় যৌথভাবে আয়োজিত হয়, যেখানে...

বেলজিয়ামে উচ্চশিক্ষা বিষয়ক বুননের সাক্ষাৎকার | Interview on higher study in Belgium

বাংলাদেশের টেক্সটাইল শিল্পের ক্রমেই দ্রুত বিকাশ ঘটে চলেছে এবং বিশ্বমানের টেক্সটাইল শিল্পের কাতারে বাংলাদেশের টেক্সটাইল শিল্প ইতোমধ্যেই নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম...