28 C
Dhaka
Monday, September 27, 2021
Home News & Analysis মনিপুরী তাঁত শিল্প

মনিপুরী তাঁত শিল্প

বাংলাদেশের তাঁত শিল্পের ইতিহাস অতি প্রাচীন। এই শিল্পের সাথে জড়িত আছে এদেশের সংস্কৃতি। আর তাঁত শিল্প আমাদের ঐতিহ্যের অন্যতম ধারক ও বাহক। দেশের সর্ববৃহৎ কুটির শিল্প বা লোকশিল্পও এটি। সিলেট এর মনিপুরী তাঁত শিল্প, এই সর্ব বৃহৎ শিল্পের অন্যতম অংশীদার।

বিখ্যাত পর্যটক ইবনে বতুতা ও হিউয়েন সাং- এর ভ্রমণ কাহিনীতে মনিপুরী বস্তু শিল্প অর্থাৎ মনিপুরী তাঁত শিল্পের উল্লেখ রয়েছে। সে দিক থেকেও বলা যায় মনিপুরী তাঁত শিল্পের ঐতিহ্য অতি প্রাচীন, এটি আমাদের হাজার বছরের ঐতিহ্য, কৃষ্টি ও সংস্কৃতি।

বর্তমানে মনিপুরী তাঁতের শাড়ির জন্যই মনিপুরীদের সুনাম বা পরিচিতি দেশের সীমা ছাড়িয়ে বিশ্বব্যাপী। সিলেট, মৌলভীবাজার, সুনামগঞ্জ ও হবিগঞ্জ জেলায় মনিপুরী জনগোষ্ঠীর বসবাস রয়েছে। এখন দেশে যে ক’টি আদিবাসী জনগোষ্ঠী রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম মনিপুরী সম্প্রদায়। তাদের ভাষা, বর্ণমালা, সাহিত্য ও সমৃদ্ধসংস্কৃতি এ দেশে যোগ করেছে ভিন্ন মাত্রা। মনিপুরীরা বুননশিল্পে খুব দক্ষ। নিজেদের কাপড় তারা নিজেরাই বুনে। প্রবাদ আছে- মনিপুরী মেয়েরা জন্মসূত্রেই তাঁতি ও প্রায় ৯০ শতাংশ নারী তাঁতের সাথে যুক্ত। মনিপুরীদের উৎপাদিত তাঁতপণ্যের মধ্যে রয়েছে- ফানেক (মনিপুরীদের বিশেষ এক ধরনের পোশাক) শাড়ি, শাল, ওড়না, থ্রি-পিস, গামছা, ফতুয়া, পাঞ্জাবি, বিছানার চাদর ইত্যাদি।

মনিপুরী ভাষায় তাঁতকে বলে ‘ইয়োং’। ইয়োং আবার দু’ধরনের। মোয়াং ও পাং। মোয়াং তাঁতে সাধারণত মোটা সূতার কাপড় তৈরি করা হয়। আর পাং তাঁতে সাধারণত চিকন সুতার কাপড় তৈরি হয়।

একসময় নিজেদের প্রয়োজনে মনিপুরীরা তাঁতের কাপড় বুনলেও ধীরে ধীরে এটি বাণিজ্যিক রূপ নিয়েছে। বিশেষ করে মনিপুরী শাড়ির বাজার বেড়েছে। কারণ, ঐতিহ্য ও আধুনিকতার মেলবন্ধনে মনিপুরী শাড়ি এখন যেকোনো সম্প্রদায়ের ফ্যাশন সচেতন নারীর কাছে পছন্দনীয়। মনিপুরী শাড়ির রঙ ও নকশা দেখলেই বোঝা যাবে, এটি মনিপুরী শাড়ি।

মনিপুরী শাড়ির মূল বৈশিষ্ট্য হলো- এর নকশায় মাইরাংগ (টেম্পল) বা মন্দিরের প্রতিকৃতি থাকবে। তাই প্রায় প্রতিটি শাড়ির আঁচল, জমিন ও পাড়ের নকশায় দেখা যায় এই প্রতিকৃতি। মনিপুরী শাড়ি তৈরি হয় বরাবরই উজ্জ্বল রঙের সুতায়। বর্তমানে আঁচল, জমিন ও পাড়ে মন্দির প্রতিকৃতির পাশাপাশি আঁচল ও জমিনে বিভিন্ন নকশা থাকে। এ ছাড়াও শাড়ির রঙ, নকশায়ও ধীরে ধীরে পরিবর্তন আসছে। অনেক তাঁতিই শাড়ির রঙ, বুননে, নকশায় বৈচিত্র আনার চেষ্টা করছেন। চলেছে নিয়মিত পরীক্ষা-নিরীক্ষা।

রাজশাহীর সিল্ক সুতায়ও মনিপুরী শাড়ি বুনা হচ্ছে। সিল্ক সুতার তৈরি মনিপুরী শাড়ি দেখতে যেমন সুন্দর, তেমনি মসৃণ ও হালকা। সিল্ক সুতার মনিপুরী শাড়ি বাজারে জনপ্রিয়তাও পেয়েছে বেশ।

মনিপুরীদের শাড়ি বুননের প্রক্রিয়াও অনেকটা আমাদের জামদানি বা দেশী তাঁতের শাড়ির মতো।

একটি তাঁতে দু’জন তাঁতি কাজ করেন দুই দিকে বসে। প্রথমে সুতা মাড় দিয়ে শুকাতে হয়। তারপর শুকানো সুতা চরকায় পেঁচিয়ে গুঁটিতে ভরে সেখান থেকে মাকুতে নিয়ে বুনতে হয়। আর সবার আগে শাড়ির টানা বাঁধতে হয়। তারপর বুনন কাজ চলে।

একটি শাড়ি বুনতে চার থেকে পাঁচ দিন সময় লাগে। তবে শাড়ির রঙ ও নকশার ওপর নির্ভর করে বোনার সময়।

সাধারণত মনিপুরী শাড়ির দাম ৬০০ থেকে চার হাজার টাকার মধ্যে হয়ে থাকে। তবে দাম কমবেশি নির্ভর করে শাড়ির নকশার ওপর ভিত্তি করে।

এই শাড়ি এখন বিদেশেও রফতানি হচ্ছে। দেশের বিভিন্ন ফ্যাশন হাউজে মনিপুরী শাড়ি বিক্রি হচ্ছে। ঢাকা ও সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে আদিবাসীদের নিজস্ব দোকানে মনিপুরী শাড়ি পাওয়া যায়।

সিলেটের বিভিন্ন স্থানে মনিপুরীদের বসবাস হলেও সবচেয়ে বেশি মনিপুরী বসবাস করে মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলায়। তাই মনিপুরী তাঁতিদের বেশির ভাগ এই উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে বসবাস করে। আদমপুর, তিলকপুর, মাধবপুর, মঙ্গলপুরসহ বিভিন্ন গ্রামের মনিপুরীদের বাড়িতে গেলেই দেখা যাবে মনিপুরী তাঁতিদের বুনন ব্যস্ততা। ঘুরে দেখে আসা যায় মনিপুরীপাড়ায়। তাদের বুননশৈলী, তাদের জীবন ধারা।

মনিপুরী দেশীয় বুননশিল্পের অন্যতম একটি মাধ্যম। মনিপুরী শাড়ি এখন দেশীয় শাড়ি হিসেবে পরিচিত। মনিপুরী তাঁতশিল্প পুরোটাই চলছে মনিপুরীদের লোকজ্ঞানে। এই শিল্পের আরো উন্নয়নের জন্য প্রয়োজন সরকারি-বেসরকারি সহযোগিতা, প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা ও প্রশিক্ষণ। তাহলেই সম্ভাবনাময় এই শিল্প পৃথিবীর বুকে সগৌরবে তার অস্তিত্ব ধরে রাখবে।

Writer:
Fatema Akter Prema
HEC
Campus Ambassador, Bunon

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

এওপিটিবি’র মিলনমেলা

সমগ্র বাংলাদেশের অল ওভার প্রিন্টিং সেক্টর নিয়ে কাজ করা সকল ইঞ্জিনিয়ার ও টেকনোলজিস্টদের প্রাণের সংগঠন “অল ওভার প্রিন্টিং টেকনোলজিস্টস অব বাংলাদেশ”।সংগঠনটির...

ভিয়েতনামের বিকল্প খুজঁছে বিশ্বের বিভিন্ন খুচরা বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান

সাধারনত যে সকল খুচরা বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানগুলো জুতা ও পোশাকের জন্য ভিয়েতনামের কারখানাগুলোর ওপর নির্ভরশীল তারা ভিয়েতনামের বিধিনিষেধের ব্যাপারে খুবই চিন্তিত। যদিও...

অনাবিল প্রশান্তির মনোরম পরিবেশে গড়ে উঠেছে ফতুল্লা এপারেল

তৈরী পোশাক শিল্প বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের প্রধান হাতিয়ার। দেশের মোট রফতানি আয়ের  ৮৪% আসে পোশাক খাত থেকে। তাই দিন দিন দেশে...

রপ্তানিতে ভিয়েতনামকে ছাড়িয়ে যাওয়ার জন্য বাণিজ্য নীতির সংস্কারের বিকল্প নেই : বিশেষজ্ঞরা

ব্যাপক বাণিজ্য কূটনীতির সংস্কার এবং অর্থনৈতিক নীতির উন্মুক্ততা ভিয়েতনামকে আজ সেরা ২০ টি দেশের তালিকায় আসতে সাহায্য করেছে। উদাহরনসরূপ ১৯৮০-৯০ সালের...

ইন্ড্রাস্ট্রিয়াল রেভ্যুলেশনে টেক্সটাইল বিজ্ঞানী রিচার্ড আর্ক রাইটের ভুমিকা |Contribution of Sir Richard Arkwright during industrial revolution.

রিচার্ড আর্করাইট শিল্প বিপ্লবের অন্যতম প্রধান ব্যক্তিত্ব হয়ে ওঠেন যখন তিনি স্পিনিং ফ্রেম আবিষ্কার করেছিলেন, যাকে পরে ওয়াটার ফ্রেম বলা হয়।...

বাংলাদেশে তুলা উৎপাদন ও এর সম্ভাবনা | Possibility of Cotton Cultivation in Bangladesh

মানুষের মৌলিক চাহিদাগুলো হলো খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, চিকিৎসা ও শিক্ষা। সভ্যতার দিক থেকে বিবেচনায় বস্ত্রই হচ্ছে আমাদের প্রথম মৌলিক চাহিদা। এই...

করোনা পরবর্তী ৫০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানী সম্ভাবনা, প্রস্তাবনা-০৯

দেশের নামকরা একটা ফ্যাক্টরীতে চারদিনের হেলথ চেক ভিজিট করছি খেয়াল করলাম দেড় কোটি টাকা ছিল গত বছরের ওভারটাইম বিল এবং আশ্চর্যজনক...