32 C
Dhaka
Monday, May 23, 2022
Home News & Analysis International News বৈশ্বিক ব্র্যান্ডগুলোর কাছে মহামারী সহায়তা চেয়েছে কম্বোডিয়ান গার্মেন্টস কর্মীরা

বৈশ্বিক ব্র্যান্ডগুলোর কাছে মহামারী সহায়তা চেয়েছে কম্বোডিয়ান গার্মেন্টস কর্মীরা

কম্বোডিয়ার গার্মেন্টস কর্মীরা করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে অপ্রাপ্ত লক্ষ লক্ষ ডলার বকেয়া মজুরি পুনরুদ্ধারে সহায়তা করতে বিশ্বের সবচেয়ে বড় পোশাক সংস্থাগুলোর সাহায্য চেয়েছে। এই অঞ্চলের গার্মেন্টস কর্মীদের  আন্দোলনের একটি বৃহত্তর অংশ হিসাবে তাদের দাবি, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যান্য প্রধান বাজারে পোশাক এবং জুতার চাহিদা  থাকা সত্ত্বেও ফ্যাক্টরিগুলো সেদিকে নজর দিচ্ছেন না। এ সপ্তাহে কম্বোডিয়া থেকে 33 টি ইউনিয়ন এবং শ্রম অধিকার গোষ্ঠীর একটি দল ব্র্যান্ডগুলোকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে চিঠি লিখে জানিয়েছে – যার মধ্যে রয়েছে অ্যাডিডাস, এইচএন্ডএম, লেভিস, নাইকি, পুমা, টার্গেট, গ্যাপ, সিএন্ডএ এবং ভিএফ কর্পোরেশন।

‘ক্লিন ক্লথস ক্যাম্পেইন’ এর দ্বারা ৭০০ টি কারখানায় চালানো এক সমীক্ষার ভিত্তিতে  এ চিঠিতে বলা হয় যে, এপ্রিল ও মে মাসে কম্বোডিয়ায় লকডাউন চলাকালে শ্রমিকরা ১১৭ মিলিয়ন ডলার মজুরি থেকে বন্চিত হয়েছে।সমীক্ষা থেকে আরোও জানা যায়, কম্বোডিয়ার ৭০০,০০০ এরও বেশি পোশাক শ্রমিকদের মহামারী শুরুর পর থেকে ৩৯৩ মিলিয়ন ডলার বকেয়া মজুরি ছিল।পরিমাণটা এতো বেশি হওয়ার কারণ হিসেবে গ্রুপটি বলছে, কারখানাগুলি দেশের শ্রম আইনে নির্ধারিত মজুরি দিতে ব্যর্থ হচ্ছে। শ্রম মন্ত্রণালয় গত বছর অর্থনৈতিক মন্দার কারণে কারখানা বন্ধ করার পরামর্শ দিয়েছিল এবং বলেছিলো ফ্যাক্টরির নিজের ক্ষতিপূরণ দিতে  হবে না বা পূর্বে নোটিশ দিতে হবে না।

শ্রমিক অধিকারের আইনজীবী কুন থারো বলেন, “এই পরামর্শ – আইন লঙ্ঘন করেছে কিন্তু পর্যাপ্ত অর্থ প্রদান অস্বীকার করার জন্য সেক্টরের মধ্যস্থতা পদ্ধতি ব্যবহার করছে।” সেন্টার ফর অ্যালায়েন্স অব লেবার অ্যান্ড হিউম্যান রাইটস -এর থারো বলেন, “যেহেতু শ্রমিকরা উপযুক্ত জীবনযাত্রা পাচ্ছে না, ব্র্যান্ডগুলিকে জবাবদিহি করতে হবে এবং কংক্রিট পদক্ষেপ নিতে হবে।গ্লোবাল ব্র্যান্ড, যাদের অনেকেই এই বছর তাদের উপার্জনের তীব্র উন্নতি দেখেছে, তারা বলেছে যে তারা পোশাক শ্রমিকদের উপর মহামারীর প্রভাব সীমিত করার চেষ্টা করেছে।

অ্যাডিডাস বলেছিল যে,জার্মান কোম্পানি ন্যায্য মজুরির জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ এবং মূল সরবরাহকারীদের মহামারীর আবহাওয়ার জন্য ব্যাঙ্ক ফাইন্যান্স সুরক্ষিত করতে সাহায্য করেছিল। এতে বলা হয়েছে, “আমাদের সরবরাহকারী কারখানাগুলির বেশিরভাগই তাদের কর্মী ধরে রেখেছে, যদিও লকডাউন বা সাসপেনশনের কারণে কাজের সময় কমে গেছে”।এদিকে পুমা বলে, কম্বোডিয়ান ইউনিয়নের চিঠিতে পুমা সরবরাহকারী কারখানার কথা উল্লেখ করা হয়নি এবং কোম্পানি যতটা সম্ভব অর্ডার বাতিল এড়াতে চেয়েছিল। “কম্বোডিয়ায়, আমরা আমাদের পোশাকের মাত্র ০.২% অর্ডার বাতিল করেছি,” একজন মুখপাত্র বলেন। “মহামারী চলাকালীন আমরা যে কারখানার সাথে কাজ করি তার সংখ্যা কমেনি।” 

শিল্প বিশ্লেষক শেং লু বলেন, “মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপে অর্থনীতি পুনরুদ্ধার এবং টিকা কার্যক্রম অগ্রগতির সাথে সাথে ব্র্যান্ডগুলি আরও আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠছে। তা সত্ত্বেও, অনিশ্চয়তা এবং বর্ধিত ব্যয় সহ বড় চ্যালেঞ্জ রয়ে গেছে”। তিনি আরোও বলেন, “এই বছর শিপিং এবং লজিস্টিক খরচ, টেক্সটাইল কাঁচামাল থেকে শুরু করে শ্রম পর্যন্ত সবকিছুই বেশি ব্যয়বহুল হয়ে ওঠে।” “২০২১ সালের গ্রীষ্মে বিশেষ করে ডেল্টা ভেরিয়েন্টের ক্ষেত্রে কোভিড কেসের অপ্রত্যাশিত পুনরুত্থান নতুন বাজারের অনিশ্চয়তা সৃষ্টি করেছে। ভিয়েতনামে,যে গত বছর চীনের পরে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম পোশাক রপ্তানিকারক হিসেবে বাংলাদেশকে ছাড়িয়ে গেছে, কোভিড-১৯ এর হার বাড়ার কারণে দেশের পোশাক ও জুতা কারখানার ৩০% থেকে ৩৫% কারখানা স্থগিত করতে বাধ্য হয়েছে। 

কম্বোডিয়ার ক্ষেত্রে, করোনা মহামারী অন্যান্য বাণিজ্য সমস্যাকে আরও বাড়িয়ে তোলে। গত বছর মানবাধিকার লঙ্ঘনের কারণে এটি তার কিছু ইউরোপীয় বাণিজ্য ক্ষেত্র হারিয়েছে। ২০২১ সালের প্রথম পাঁচ মাসে জামাকাপড়,ফুটওয়্যারএবং সংশ্লিষ্ট পণ্যের ইইউতে এর রপ্তানি ১৪% হ্রাস পেয়েছে। এদিকে, ফেব্রুয়ারিতে সামরিক অধিগ্রহণের পরও মিয়ানমার তার প্রতিশ্রুতিশীল পোশাক খাতের প্রবৃদ্ধি দেখেছে। ইউরোপে বছর হিসেবে রপ্তানি প্রথম পাঁচ মাসে ১৭% এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ২% হ্রাস পেয়েছে। লু,যিনি ৩১ টি বড় ফ্যাশন কোম্পানি জরিপ করেছিলেন, বলেছিলেন যে, কিছু ব্র্যান্ড ইতিমধ্যে কম্বোডিয়ায় স্থানান্তরিত হয়েছে এবং তাদের ফিরে আসার সম্ভাবনা নেই।

বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম পোশাক রপ্তানিকারক বাংলাদেশ, রেকর্ডসংখ্যক কোভিড-১৯ সংক্রমণ ও মৃত্যুর পর দুই সপ্তাহের জোরপূর্বক বন্ধের পর এই সপ্তাহে কারখানাগুলি পুনরায় চালু হয়েছে। লু বলেন, এই অঞ্চলের কারখানাগুলো স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসার জন্য সংগ্রাম করছে, তাদের সামনে আরও অনিশ্চয়তা আসতে পারে।তিনি আরোও বলেন, “সামগ্রিকভাবে, কোভিড -১৯ থেকে বিশ্ব বস্ত্র ও পোশাক বাণিজ্য পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়া ২০০৮ সালের বৈশ্বিক আর্থিক সংকটের সময় আমাদের অভিজ্ঞতা থেকে ভিন্ন হবে, এটি একটি মহামারী যা নতুন এজেন্ডা নির্ধারণ করে।”

রিপোর্টারঃ
মোঃজাহিদুল ইসলাম আকাশ
ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স রিপোর্টার, বুনন
BUTex

Most Popular

অল ওভার প্রিন্টিং সেক্টরের বর্তমান চ্যালেঞ্জ বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত

“অল ওভার প্রিন্টিং টেকনোলজিস্টস বাংলাদেশ - এওপিটিবি” সংগঠন অল ওভার প্রিন্টিং সেক্টরের বর্তমান চ্যালেঞ্জ বিষয়ক একটি অনলাইন সেমিনার করেন। অনলাইন সেমিনারটি রবিবার...

১২তম বাংলাদেশ ডেনিম এক্সপোর সফল আয়োজন

সফলভাবে আয়োজিত হয়েছে ১২তম বাংলাদেশ ডেনিম এক্সপো। দুই বছর করোনা মহামারির বিরতির পর গত ১০ ও ১১ মে ঢাকার বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টারে...

বাংলাদেশ আই.ই, প্লানিং এন্ড অপারেশন এসোসিয়েশন এর প্রধান উপদেষ্টামন্ডলী গঠিত

একুশ শতকের বাংলাদেশে টেক্সটাইল শিল্পে বিপ্লবের অন্যতম কারন টেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রিগুলোর ক্ষতি হ্রাস করে, রিসোর্স গুলো সর্বোচ্চ ব্যবহার করে উৎপাদন বৃদ্ধি করা। আর...

বিশ্বসেরা গবেষকদের তালিকায় নিটারের শিক্ষক

বিশ্বসেরা গবেষকদের তালিকায় স্থান করে নিয়েছেন ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড রিসার্চ (নিটার) এর টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট এর সহকারী অধ্যাপক ড....

এলেন ম্যাকআর্থারের ফাউন্ডেশনের ” ডেনিম পন্যের পুনঃব্যবহারযোগ্যতা বৃদ্ধি” উদ্যোগকে অনুপ্রানিত ও ত্বরান্বিত করতে ‘জিন্স রিডিজাইন’ চালু করছে “এইচ এন্ড এম”

এলেন ম্যাকআর্থারের ফাউন্ডেশনের উদ্যোগকেই  অনুপ্রাণিত হয়ে জনপ্রিয় ফ্যাশন ব্র্যান্ড "এইচএন্ডএম " পুরুষদের ডেনিম সংগ্রহ করা শুরু করেছে অক্টোবরের মাঝামাঝি সময়ে এবং...

ডিরেক্ট ডাইয়ের (Direct Dye) এন্টিমাইক্রোবিয়াল গুনাবলি ও একটি সম্ভাবনার গল্প

মনে কর, তুমি তোমার ভাইয়ের জন্য মার্কেট থেকে চমৎকার কালারফুল একটি পাঞ্জাবী কিনতে গেলে। তো এক দোকানির কাছে পাঞ্জাবি পেলে যা...

বুটেক্স আর্টেক্সের পথচলা | Journey of ARTex, BUTex

"আর্টেক্স" বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি ব্যতিক্রমধর্মী সংগঠন। "আর্টেক্স "সংগঠনটির পথচলা শুরু হয় ২০১৯ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি,অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪১ তম ব্যাচের কতিপয়...