18 C
Dhaka
Thursday, February 2, 2023
HomeBusiness & FashionRetailযুক্তরাষ্ট্রে রিটেইলার হিসেবে ওয়ালমার্ট কে ছাড়িয়ে যাবে অ্যামাজন

যুক্তরাষ্ট্রে রিটেইলার হিসেবে ওয়ালমার্ট কে ছাড়িয়ে যাবে অ্যামাজন

সম্প্রতি জে পি মরগ্যানের প্রকাশিত গবেষণা অনুসারে-২০২২ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বৃহত্তম রিটেইলার বিক্রেতা হিসেবে ওয়ালমার্ট কে ছাড়িয়ে যাবে অ্যামাজন। সংস্থাটির বিশ্লেষকরা বলছেন যুক্তরাষ্ট্রে অ্যামাজনের রিটেইলার ব্যবসা খুব দ্রুতগতিতে বৃদ্ধি পাচ্ছে। তারা জানিয়েছে, ২০১৪ থেকে ২০২০ সালের মধ্যে অ্যামাজনের ইউ এস গ্রোস মার্চেন্ডাইজ ভলিউম (GMV), যুক্তরাষ্ট্রের স্থায়ী এবং ই-কমার্স ব্যবসা গুলোর তুলনায় অ্যামাজনের খুচরা বিক্রয় উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। GMV হল একটি মেট্রিক পদ্ধতি যার মাধ্যমে নির্দিষ্ট সময়ে বিক্রিত পণ্য সামগ্রীর মোট মান নির্ধারন করতে ব্যবহৃত হয়।

দুই মার্কিন বিশ্লেষক ক্রিস্টোফার হরভারস এবং ডগ আনমূথ বলেন, বর্তমান অনুমানের ভিত্তিতে তারা বিশ্বাস করে যে অ্যামাজন খুব শীঘ্রই ওয়ালমার্ট কে ছাড়িয়ে যাবে এবং ২০২২ সালের মধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বৃহত্তম রিটেইলার হয়ে উঠবে।

এ নিয়ে মার্কিন গণমাধ্যমে বলা হয় যে -২০২০ সালে অ্যামাজনের GMV ৪১ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ৩১৬ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত হয়েছে, যেখানে একই সময়ে ওয়ালমার্টের GMV মাত্র ০.১০ শতাংশ বৃদ্ধি পায়।

অ্যামাজনের এই উন্নতির কারণ হিসেবে হরভারস এবং আনমূথ তাদের বিশ্লেষনে কয়েকটি বিষয় হাইলাইটস করেছেন যেখানে তারা অ্যামাজনের গ্রোসারী পণ্য এবং তৈরী পোষাককে টার্গেট পণ্য হিসেবে চিহ্নিত করেছে।

অ্যামাজনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জেফ বেজোস গত এপ্রিলে তার একটি ইন্টারভিউ তে বলেন -“বর্তমানে অ্যামাজনের প্রায় ২০০ মিলিয়নেরও বেশী প্রাইম মেম্বার রয়েছে যার সংখ্যা গত বছরে ১৫০ মিলিয়ন ছিল।”

জে পি মরগ্যানের গবেষনায় আরও উল্লেখ করে বলেন, ই-কমার্সের বাজারে অ্যামাজন খুব দ্রূত বৃদ্ধি লাভ করছে। ২০১৪ সালে ইউ এস এর ই-কমার্সের মার্কেটে যেখানে অ্যামাজনের শেয়ার ছিল ২৪ শতাংশ, তা ২০২০ সালে বেড়ে ৩৯ শতাংশে দাড়িয়েছে।

ব্যাংক আমেরিকার প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে বিশ্লেষকরা উল্লেখ করে বলেন যে-অ্যামাজন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বৃহত্তম সরবরাহকারী সংস্থাগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি সংস্থা  হয়ে উঠার পথে রয়েছে।ধারনা করা হচ্ছে ২০২১ সালে অ্যামাজন প্রায় ৭ মিলিয়ন প্যাকেজের পণ্য সরবরাহ করবে, ২০২০ সালে যার পরিমান ছিল ৬ মিলিয়ন। ইতিমধ্যে সংস্থাটি তাদের টার্গেট এর ৫ মিলিয়ন পণ্য হস্তান্তর করে ফেলেছে বলে অনেকে মনে করেছে।

চলতি বছরের এপ্রিলে এসেন্টিয়ালের একটি মার্কেট রিসার্চ টিমের প্রকাশিত প্রতিবেদনে তারা বলেন যে -আগামী ৪ বছরের মধ্যে অ্যামাজন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বৃহত্তম রিটেইলার হিসেবে ওয়ালমার্ট কে ছাড়িয়ে যাবে। ২০২৫ সালের মধ্যে অ্যামাজনের GMV ৬৩১.৬ বিলিয়ন ছাড়িয়ে যাবে যা সিএজিআর (Compound Annual Growth Rate) এর ১৪ শতাংশ বৃদ্ধিকে নির্দেশ করে। বিপরীতে ওয়ালমার্টের মোট বিক্রয় ৩.৯ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ২০২৫ সালের মধ্যে ৫২৩.৩ মিলিয়নে পৌছাবে।

রিপোর্টার
মাসুদ রানা
ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স রিপোর্টার, বুনন
- Advertisment -

Most Popular

করোনা পরবর্তী ৫০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানী সম্ভাবনা, প্রস্তাবনা-০৭

আজকের প্রস্তাবনা টা খুবই তিক্ত একটা বিষয়ে। আমরা যারা কর্মকর্তা ও কর্মচারী হিসেবে কাজ করছি, তাদের মাইন্ড সেট নিয়ে আমার দুই দশকের পর্যবেক্ষণ বলা...

মার্কিন বাজারে বাড়ছে বাংলাদেশের পোশাক রপ্তানি হার

করোনার স্থবিরতা কাটিয়ে পোশাকের আমদানি ইতিবাচক হতে শুরু করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। গত আগস্ট মাস থেকে ইতিবাচক প্রবৃদ্ধির দিকে হাঁটছে বাংলাদেশ। অর্থাৎ আগস্টে মার্কিন বাজারে...

কোভিড-১৯ ও গ্লোবাল ফ্যাশন ই-কমার্স মার্কেট

ফ্যাশন ই-কমার্স মার্কেট সম্পর্কিত বিজনেস রিসার্চ কোম্পানির গবেষণার প্রতিবেদন অনুসারে, কোভিড-১৯ এর সময়ে অনলাইন শপিং মার্কেটের বৃদ্ধি হচ্ছে এবং আরোও বেশিগুনে বৃদ্ধি পাবে বলে...